protichinta
book

পুরনো সংখ্যা দেখতে চাইলে

  • সম্পাদকীয়
  •   প্রতিবারের মতো এ সংখ্যায় রাজনীতি-অর্থনীতি-সমাজের মতো প্রসঙ্গগুলো ধর্ম-ধর্মনিরপেক্ষতা, গণতন্ত্র, ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক ও ঔপনিবেশিক আমলে সম্পদ লুণ্ঠন ইত্যাদি শিরোনামে একত্র করা হয়েছে। গুরুত্ব দিয়ে তুলে আনা হয়েছে পরিবেশ প্রসঙ্গটি। সম্প্রতি আমাদের সরদার ফজলুল করিমকে আমরা হারিয়েছি। দার্শনিক, আজীবন জ্ঞান অনুশীলনকারী এ মানুষটির প্রতি রইল কৃতজ্ঞতা। আমরা তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।  ভারতে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিজেপির নিরঙ্কুশ…বিস্তারিত
  • সমাজ
  • আকবর আলি খান
    সারসংক্ষেপ বাংলা অঞ্চলে মানুষের আর্থসামাজিক জীবনে ধর্মের প্রভাব নিয়ে একটি নাতিদীর্ঘ আলোচনা করার প্রয়াসেই এই প্রবন্ধটি লেখা হয়েছে। এই অঞ্চলের মানুষের মধ্যে ধর্মীয় ও জাতিগত ভেদাভেদ এক দিনে শিকড় গেড়ে বসেনি। শুধু হিন্দু-মুসলমান বিভক্তিই নয়, প্রত্যেক ধর্মের ভেতরে শাখা-প্রশাখার মধ্যে বিভেদ ও বৈষম্য মানুষের সামাজিক জীবনে বিস্তর প্রভাব ফেলেছিল। এ প্রবন্ধে বাংলা অঞ্চলে ইসলাম ধর্মের আবির্ভাব ও সম্প্রসারণ এবং হিন্দু ধর্মের প্রকৃতি ও বিবর্তনকে ঐতিহাসিক…বিস্তারিত
  • আন্তর্জাতিক
  • ইমতিয়াজ আহমেদ, অনুবাদ: গোলাম মুস্তফা
    সারসংক্ষেপ ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্কের ক্ষেত্রে পারস্পরিক যে ভাবমূর্তিটি দাঁড়িয়েছে, তা অনেকটাই প্লেটোর গুহার রূপক গল্পটির মতো, যেখানে একজন আজন্ম গুহাবন্দী মানুষ তার নিজের ছায়া সম্পর্কে এবং তাকে পাহারা দেওয়া ব্যক্তি সম্পর্কে অস্পষ্ট এবং ছায়াচ্ছন্ন ধারণা পোষণ করে। এই দুটি দেশ একে অন্যের ভীতিকর ভাবমূর্তি এঁকেছে, যেটা তাদের নিয়ত তাড়িয়ে বেড়ায়। আর ‘অন্যের’ একটি অস্পষ্ট ও ছায়াচ্ছন্ন ভাবমূর্তি তৈরি করার পেছনে ১৯৪৭ সালের দেশভাগ যেমন ভূমিকা রেখেছে,…বিস্তারিত
  • রাজনীতি
  • সাঈদ ইফতেখার আহমেদ
    সারসংক্ষেপ বাংলাদেশে গত ৪২ বছরে গণতন্ত্রের নিরীক্ষা এর অগ্রযাত্রার পথে যে সংকট তৈরি করেছে, বর্তমান নিবন্ধে তার উত্সমূলসমূহ অনুসন্ধান করা হয়েছে। উত্তর (অভ্যন্তরীণ) ঔপনিবেশিক বাস্তবতার বিষয়সমূহ বিবেচনায় না রেখে ঔপনিবেশিকতার সূত্রে প্রাপ্ত গণতান্ত্রিক ধারণা এবং কাঠামোসমূহকে  হুবহু অনুকরণ করার প্রচেষ্টাকে সংকটের উত্সমূল হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ফলে এ গণতন্ত্রের চর্চা একদিকে যেমন জন্ম দিয়েছে বিভাজিত জাতীয়তাবাদ, অন্যদিকে ডান সর্বাত্মকবাদী…বিস্তারিত
  • পরিবেশ
  • পাভেল পার্থ
    সারসংক্ষেপ বর্তমান প্রবন্ধে তাই প্রতিবেশ-নারীবাদী চিন্তাধারাকে সঙ্গে নিয়ে বাংলাদেশের প্রান্তিক জনগণের জলবায়ু পরিবর্তনসম্পর্কিত নিজস্ব লোকায়ত ভাবনা এবং অবস্থানকে পাঠ করেছে। চাকমা সমাজের রাধামন-ধনপুদী, মান্দি সমাজের দিগ্গি-বান্দি বা শেরানজিং, বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরি সমাজের রাসপালা, হাজং সমাজের জাখামারা গীত বা সুন্দরবনের গাজীর পট, বিল এলাকার মনসামঙ্গল, হাওর জনপদের ধামাইল বা বান্ধা কি মৈমনসিংহ গীতিকা বা কিসসা-কাহিনি-পই-প্রবাদ-ডাক-ডিঠান-শোলক বা খনার…বিস্তারিত
  • বই আলোচনা
  • মিজানুর রহমান খান
    বাংলাদেশ: এ স্টাডি অব দ্য ডেমোক্রেটিক রেজিমস-মওদুদ আহমদ, ইউপিএল ২০১২ মওদুদ আহমদ বাংলাদেশের রাজনীতির একটি অন্যতম কৌতূহলোদ্দীপক চরিত্র। বাংলাদেশের সমসাময়িক ইতিহাসজুড়ে তাঁর রাজনৈতিক উপস্থিতি লক্ষণীয়। তিনি কখনো নন্দিত, কখনো নিন্দিত। আমরা মওদুদ আহমদের বইয়ের আলোচনায় প্রবেশের আগে তাঁর সাম্প্রতিক রাজনৈতিক অবস্থান স্মরণ করে নিতে পারি। কারণ তিনি এমন একটি সময়ে গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা নিয়ে আলোচনা করেছেন, যখন তিনি নিজেই অগণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থায়…বিস্তারিত
  • বই আলোচনা
  • আসজাদুল কিবরিয়া
    আ ওয়ার্ল্ড উইদাউট ইসলাম—গ্রাহাম ই ফুলার; নিউইয়র্ক: ব্যাক বে বুকস, লিটল ব্রাউন অ্যান্ড কোম্পানি, এপ্রিল ২০১২ (ইন্টারন্যাশনাল ম্যাস মার্কেট এডিশন) প্রারম্ভিক কথা আবির্ভাবের এক হাজার ৪০০ বছর পর ইসলাম ধর্ম আজকে সারা দুনিয়ায় একটি অদ্ভুত বিরূপ সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। একদিকে পশ্চিমা দুনিয়ার একাংশ ইসলাম ও সন্ত্রাসবাদকে সমার্থক করে তোলার নিরন্তর প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে, অন্যদিকে এই পশ্চিমা বিশ্বেরই আরেকাংশ ইসলামকে একটি সহনীয় গণতান্ত্রিক পরিসরে…বিস্তারিত
  • লে খ ক প রি চি তি
  • আকবর আলি খান অর্থনীতিবিদ ও প্রাবন্ধিক। ইতিহাস নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ গবেষণা করেছেন। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা এবং রেগুলেটরি রিফর্ম কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান। উল্লেখযোগ্য প্রকাশনা—অন্ধকারের উত্স হতে (পাঠক সমাবেশ, ২০১০); পরার্থপরতার অর্থনীতি (ইউপিএল, ২০০০); ডিসকভারি অব বাংলাদেশ: এক্সপ্লোরেশন ইনটু ডিনামিকস অব এ হিডেন ন্যাশন (ইউপিএল, ১৯৯৬); সাম আসপেক্টস অব পিজ্যান্ট বিহেভিয়র ইন বেঙ্গল, ১৮৯০-১৯১৪: এ নিও-ক্ল্যাসিকাল অ্যানালিসিস (এশিয়াটিক সোসাইটি…বিস্তারিত
pathok

যোগাযোগের ঠিকানা

সিএ ভবন,
১০০ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,
কারওয়ান বাজার, ঢাকা - ১২১৫।

ফোন: ৮৮০-২-৮১১০০৮১, ৮১১৫৩০৭
ফ্যাক্স - ৮৮০-২-৯১৩০৪৯৬

protichinta kinte chile